1. adnanfahim069@gmail.com : Adnan Fahim : Adnan Fahim
  2. admin@banglarkota.com : banglarkota.com :
  3. kobitasongkolon178@gmail.com : Liton S.p : Liton S.p
  4. miraz55577@gmail.com : মোঃ মিরাজ হোসেন : মোঃ মিরাজ হোসেন
  5. ridoyahmednews@gmail.com : Ridoy Khan : Ridoy Khan
  6. irsajib098@gmail.com : Md sojib Hossain : Md sojib Hossain
  7. zahiruddin554@gmail.com : Md. Zahir Uddin : Md. Zahir Uddin
মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১, ০৩:৫৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :

আপনার লেখা গল্প,কবিতা,উপন্যাস, ছড়া গ্রন্থ আকারে প্রকাশ করতে যোগাযোগ করুন। সাগরিকা প্রকাশনী ০১৭৩১৫৬৪১৬৪৷ কিছু সহজ শর্তে আমরা আপনার পান্ডুলিপি প্রকাশের দায়িত্ব নিচ্ছি।

প্রীতির তীর কলমেঃ মোহাম্মদ মুজিবুল হক।দৈনিক বাংলার কথা অনলাইন।

রিপোর্টার মোঃ মিরাজ হোসেন।
  • প্রকাশিত: শনিবার, ৩ এপ্রিল, ২০২১
  • ৩৫ বার পড়া হয়েছে

বিষয়ঃ গল্প
শিরোনামঃ প্রীতির তীর
কলমেঃ মোহাম্মদ মুজিবুল হক
তারিখঃ ০৩/০৪/২০২১

ভার্চুয়ালী যোগাযোগের মাধ্যমে পূর্ব নির্ধারিত আড্ডা স্থলে মুকুল আগেভাগে হাজির। স্থানটি যেনো নিপুণ শিল্পীর আঁকা ছবি। প্রকৃতি এখানে তার সবটুকু সৌন্দর্য উজাড় করে দিয়েছে। বিশাল রেইন ট্রির ছায়াঘেরা কোলাহল মুক্ত মনোরম পরিবেশে মুকুল কিছুক্ষণের জন্য নিজেকে হারিয়ে ফেলে। হঠাৎ তার সম্বিৎ ফিরে পায়। সাহিত্যিক
বন্ধুদের সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ শুরু করে দেয়। সরাসরি আগে কোনোদিন কারো সাথে দেখা হয়নি। ফেবুর কল্যাণে সাহিত্য গ্রুপের সদস্য হিসেবে তাদের কাছে আসা।
আড্ডার আয়োজক শামুর দেখা পেয়ে যায় মুকুল রিংটোন বাজার শব্দে। আরে আপনি! এতো কাছে থেকেও আপনাকে পাচ্ছি না;ভাগ্যিস! মুঠো
ফোন ছিলো,নইলে কী যে হতো!
একগাল হেসে ও বললো, আর কী হবে? এসেই তো গেলাম। সুমনা,ওভিক,মিন্টু,হেলাল ওদের খবর কী? ভ্রু কুঁচকে জিজ্ঞেসা করে শামু। মুকুল
বলল, সবার সাথে কথা বলেছি,পথেই আছে।
কথা শেষ হতে না হতেই দেখি, সবাই এক-এক করে হাজির।
মুকুলের অন্য মনস্কতা শামুকে ভাবিয়ে তোলে।
সে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেয়, কী রে? কী হলো?
মুকুল বলে, কিছুই না। একটা চমক আছে, সেটা ঘটতে দেরী হচ্ছে বিধায় একটু চিন্তিত আছি।
ঠিক তখনি মুকুলের মুঠো ফোন বেজে ওঠে।
মুকুল ফোন রিসিভ করে। জি ভাই, আপনি কোথায়? আড্ডার কাছাকাছি এসে খোঁজাখুঁজি। মুঠো ফোনের কল্যাণে রক্ষা পেলো মুকুল। চমক আর কিছুই নয়; বিশেষভাবে আমন্ত্রিত অতিথি কবি রহমতুল্লাহর আগমনের খবর।
শামু বললো, চলুন সবাই ঐ যে সুন্দর একটা সাজানো গুছানো বসার জায়গা দেখতে পাচ্ছি, ওখানে গিয়ে বসি। সবাই ওখানে গিয়ে বসে গেলো। অভিক বেশ চমৎকারভাবে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করলো। সবাই সাহিত্যের জয়গান
গেয়ে গেলো। সুমনার দারুণ আবৃত্তি সবার মনে দাগ কাটে, ওর দিকে যেনো প্রশংসার ফুলঝুরি ছুটছিলো। মিন্টু এসেছিলো সস্ত্রীক। তারা উভয়ে সাহিত্যরসিক জুটি। হেলাল অসাধারণ কথামালার
যাদুতে সবাইকে মোহিত করে রাখলো। মুকুল আর মিন্টু আড্ডার ফাঁকে কখন যে জিভে জল আসা চমৎকার নাস্তার ব্যবস্থা করে, তা কেউ টের পায়নি। কিন্তু বিল শোধ করতে গিয়ে তাদের মূর্ছা যাওয়ার উপক্রম! অভিক ও শামু এগিয়ে এসে
তাদের রক্ষা করে। ওদের মনটা বেশ উদার।
শামু আড্ডার ইতি টানতে গিয়ে প্রীতির তীর ছুঁড়ে সবাইকে অমলিন প্রেমডোরে গেঁথে নিলো, যেনো এবন্ধন ছিন্ন না হয়। মুকুল আবার অন্য মনস্ক হয়ে পড়ে।শামু কিন্ত এবার আর কিছু জিজ্ঞেস করে না। সে ধরে নিয়েছে, মুকুল নিজেকে হারিয়ে ফেলেছে। হয়তো নতুন কোনো চমকের অপেক্ষা……।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সাগরিকা প্রকাশনী ও বই বিপণি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত