1. adnanfahim069@gmail.com : Adnan Fahim : Adnan Fahim
  2. admin@banglarkota.com : banglarkota.com :
  3. kobitasongkolon178@gmail.com : Liton S.p : Liton S.p
  4. miraz55577@gmail.com : মোঃ মিরাজ হোসেন : মোঃ মিরাজ হোসেন
  5. ridoyahmednews@gmail.com : Ridoy Khan : Ridoy Khan
  6. irsajib098@gmail.com : Md sojib Hossain : Md sojib Hossain
  7. zahiruddin554@gmail.com : Md. Zahir Uddin : Md. Zahir Uddin
মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ১২:১৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজঃ

আপনার লেখা গল্প,কবিতা,উপন্যাস, ছড়া গ্রন্থ আকারে প্রকাশ করতে যোগাযোগ করুন। সাগরিকা প্রকাশনী ০১৭৩১৫৬৪১৬৪৷ কিছু সহজ শর্তে আমরা আপনার পান্ডুলিপি প্রকাশের দায়িত্ব নিচ্ছি।

করোনাকালে ভ্যাকসিন বড়দের,শিশুদের জন্য কী ব্যবস্থা? লেখিকাঃ- পারভীন আকতার।বাংলার কথা অনলাইন।

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৪৯ বার পড়া হয়েছে

করোনাকালে ভ্যাকসিন বড়দের,শিশুদের জন্য কী ব্যবস্থা?
—————————–
🖍️🖍️পারভীন আকতার

বিশ্বকে একপ্রকার কোনঠাসায় করে ফেলেছে মহা প্রতাপশালী ভাইরাস “করোনা”। দেখতে ফুলের মতো হলেও কাজটি  তার সম্পূর্ণ বিপরীত।কন্টকময় করোনা ভাইরাস মানুষের প্রাণ নিয়ে নিচ্ছে কথার কোন জমাখরচ ছাড়াই।
কী হবে সামনের দিনগুলো অজানা আশংকায় ভরপুর।নিরাপদ হওয়ার জন্য মানুষ হুমড়ে হয়ে ভ্যাকসিন নিচ্ছে।অনেকটা স্বস্তি! যদি বেঁচে থাকা যায়!এ বড়দের স্যালুশন!কিন্তু বিশ্বের জনসংখ্যার চারভাগের তিনভাগই শিশু।১৮ বছর পর্যন্ত শিশুর বয়স নির্ধারণ করা হয়েছে।কিন্তু এখন সবাই চরম ঝুঁকিতে করোনার কারণে।ভ্যাকসিন যা আবিস্কার হয়েছে তার কোনটাই শতভাগ কাজ করবে না স্বয়ং নির্মাতা প্রতিষ্ঠানই সাফ বলে দিয়েছেন। পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া কম বেশি আছে বৈকি।একটি সাধারণ প্যারাসিটামল ঔষধ সেবনে আমাদের শরীরের রীতি পরিবর্তন করতে পারলে ভ্যাকসিনের কতটুকু শরীরে প্রভাব থাকতে পারে তা না বুঝার মতো কিছু নেই।কথা হলো এই শারীরিক যু্দ্ধ সয়বার ক্ষমতা সবার আছে কি না।টিকা দেয়ার আগে অবশ্যই বিভিন্ন শারীরিক টেস্ট করানো জরুরী মনে করি।বিশেষ করে করোনা আছে কি না।এখন দেখছি ঢালাও ভাবে সবাই টিকা নিচ্ছেন।নিজের জীবন!একবার ভেবে নেবেন।শরীরের সক্ষমতা কতটুকু আছে তা আগে জেনে তারপর টিকা দিন।যার মৃত্যু যখন,তখন হবেই।জগতের কোন টিকাই বাঁচাতে পারবে না।হাসপাতালে মানুষ যায় বাঁচতে।তবে সেখানেও মানুষ মরে কেন ভেবে দেখবেন।টাইম শেষ!জীবনও শেষ!

এখন আমার ভাবনা ঘুরপাক খাচ্ছে শিশুদের ঘিরে।ওরা সামনের দিনগুলোতে বড়ই অনিরাপদ। করোনার ভ্যাকসিন তাদের জন্য সহনীয় মাত্রায় আবিষ্কার এখন খুব জরুরী।বড়জনরা নিরাপদ বলে ছোটজনরা নিরাপদ হবে তা ঘুণাক্ষরেও ভাববেন না।তখন টম এন্ড জেরীর মতো অবস্থা হবে।ছোট বড় সবার জন্যই একটি কার্যকরী প্রতিষেধক গবেষণার ফর্মূলা হওয়া উচিত।করোনা যুগ যুগ ধরে থাকবে কি না জানিনা।কিন্তু ভাইরাসের মরণ সহজে হয় না।দীর্ঘদিন জ্বালাবে মনে হচ্ছে।আর ততদিন কি মানুষ ঘরে বসে থাকতে পারবে?কখনোই না।পেটের খিদের কামড় জগতে সবচেয়ে বড় প্রাণ সংহারের আশঙ্কা পরিলক্ষিত। দুর্ভিক্ষ নেমে আসবে।খেতে না পেয়ে মানুষ মারা যাবে।ফলন,বলন আর চলনের জন্য মানুষকে বের হতেই হবে।আর শিশুরাও বাদ যাবে না।তাদের বন্দীদশা থেকে মুক্ত করুন।খোলা হাওয়ায় হাঁটতে দিন।পৃথিবীর বড় বড় মাথাওয়ালারা ভাবুন কী করে সমাধান আসে!পথ খুঁজুন।সেই পথে এগিয়ে যান দয়া করে।

পারভীন  আকতার
শিক্ষক,কবি ও প্রাবন্ধিক
চট্টগ্রাম।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সাগরিকা প্রকাশনী ও বই বিপণি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত