1. adnanfahim069@gmail.com : Adnan Fahim : Adnan Fahim
  2. admin@banglarkota.com : banglarkota.com :
  3. kobitasongkolon178@gmail.com : Liton S.p : Liton S.p
  4. miraz55577@gmail.com : মোঃ মিরাজ হোসেন : মোঃ মিরাজ হোসেন
  5. ridoyahmednews@gmail.com : Ridoy Khan : Ridoy Khan
  6. irsajib098@gmail.com : Md sojib Hossain : Md sojib Hossain
  7. zahiruddin554@gmail.com : Md. Zahir Uddin : Md. Zahir Uddin
শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ১০:২৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজঃ

আপনার লেখা গল্প,কবিতা,উপন্যাস, ছড়া গ্রন্থ আকারে প্রকাশ করতে যোগাযোগ করুন। সাগরিকা প্রকাশনী ০১৭৩১৫৬৪১৬৪৷ কিছু সহজ শর্তে আমরা আপনার পান্ডুলিপি প্রকাশের দায়িত্ব নিচ্ছি।

মনপুরার এক যুগ।বাংলার কথা অনলাইন।,

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শনিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৬৫ বার পড়া হয়েছে

মনপুরার এক যুগ ❤️

২০০৯ সাল,ফেব্রুয়ারি মাস।
বাংলা চলচ্চিত্র থেকে নানা কারনে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল মধ্যবিত্ত শ্রেনীর দর্শকরা।এমন সময় মুক্তি পেলো গ্রাম- বাংলার আবহমানের প্রেমের গল্প ‘মনপুরা’।

যাও পাখি বলো তারে,নিধুয়া পাথারে গানের মাঝেও দর্শকরা বিমোহিত হয়েছিল সোনাই- পরীর প্রেমে।এই ছবির সাফল্যই বলে ছিল ছবির প্রান এর গল্প,আর ঠিকঠাক প্রচারনা।গল্প,অভিনয়,সংগীত,নির্মানশৈলীর যথাযথ ব্যবহারে ‘মনপুরা’ হয়ে উঠল জনপ্রিয় চলচ্চিত্র।ছবিটি সর্বস্তরের জনগণ এতটাই গ্রহন করলো যে,ছবিটি গত দুই দশকের সর্বোচ্চ ব্যবসাসফল ছবি তো বটেই,নাম লিখালো গত বাংলা চলচ্চিত্রের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ব্যবসাসফল ছবির তালিকায়।

সংগীতের জনপ্রিয়তায় ছিল একটা মাইলফলক, ‘যাও পাখি বলো তারে’ গানটি নি:সন্দেহে জায়গা করে নিয়ে স্মরণকালের জনপ্রিয় গানের তালিকায়।ছবির এলব্যামের সফলতা ছিল অকল্পনীয়।শুধু ব্যবসাসফল/জনপ্রিয়তা নয় পুরস্কারের আসরেও ছবিটি ছিল আলোচিত।সেরা চলচ্চিত্র,অভিনেতা সহ মোট ৬ টি জাতীয় পুরস্কার অর্জন করার পাশাপাশি বেসরকারী পুরস্কারের আসরেও বাজিমাৎ ছিল এই ছবিটি।বাংলা চলচ্চিত্রের এই মাইলফলক ছবিটির পিছনে কান্ডারী ছিলেন জনপ্রিয় নির্মাতা গিয়াসউদ্দিন সেলিম,সাথে সোনাই- পরী হয়ে বিমুগ্ধ করে রেখেছিলেন চঞ্চল চৌধুরী ও ফারহানা মিলি। চঞ্চল চৌধুরী সেই বছরের জাতীয় পুরস্কার থেকে মেরিল প্রথম আলো পুরস্কার,বাচসাস পুরস্কার পর্যন্ত পান। গায়িকা কৃষ্ণকলি,চন্দনা মজুমদার,চিত্রনাট্যকার হিসেবে গিয়াসউদ্দিন সেলিম জাতীয় পুরস্কার পান। সিনেমাটির প্রযোজনায় ছিলেন মাছরাঙা কমিউনিকশন লিমিটেড,প্রযোজক হিসেবে জাতীয় পুরস্কার পান অঞ্জন চৌধুরী। আফসোসের বিষয় তাদের কে আর সিনেমায় সেভাবে পাওয়া গেল না। তবে সবচেয়ে বড় আফসোস পরী রুপী ফারহানা মিলি কে নিয়ে,সিনেমাতে আর তাকে দেখাই গেল না!

আজ বসন্তের প্রথম দিনে ও ভালোবাসা দিবসের প্রাক্কালে মন ছুঁয়ে যাওয়া আবহমান ভালোবাসার সিনেমা ‘মনপুরা’ পেরোলো বর্ণিল বারো বছর <3

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সাগরিকা প্রকাশনী ও বই বিপণি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত