1. adnanfahim069@gmail.com : Adnan Fahim : Adnan Fahim
  2. admin@banglarkota.com : banglarkota.com :
  3. kobitasongkolon178@gmail.com : Liton S.p : Liton S.p
  4. miraz55577@gmail.com : মোঃ মিরাজ হোসেন : মোঃ মিরাজ হোসেন
  5. ridoyahmednews@gmail.com : Ridoy Khan : Ridoy Khan
  6. irsajib098@gmail.com : Md sojib Hossain : Md sojib Hossain
  7. zahiruddin554@gmail.com : Md. Zahir Uddin : Md. Zahir Uddin
শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ১১:৪১ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজঃ

আপনার লেখা গল্প,কবিতা,উপন্যাস, ছড়া গ্রন্থ আকারে প্রকাশ করতে যোগাযোগ করুন। সাগরিকা প্রকাশনী ০১৭৩১৫৬৪১৬৪৷ কিছু সহজ শর্তে আমরা আপনার পান্ডুলিপি প্রকাশের দায়িত্ব নিচ্ছি।

কবি মেহেদী হাসান এর শ্রেষ্ঠ চার কবিতা। বাংলার কথা অনলাইন।

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৭২ বার পড়া হয়েছে

কবি পরিচয়ঃ মোঃ মেহেদী হাসান। তার পিতার নামঃ আল হাজ্জ হযরত মাওঃ মোঃ হাবিবুর রহমান এবং মাতার নামঃ মোসাঃ আসমা বেগম। তার দাদা মৃতঃ মোঃ মানিক মোল্লা এবং দাদি মৃতঃ মোসাঃ আমিরজান বিবি।বরগুনা জেলার, আমতলী উপজেলার, চাওরা ইউনিয়ান এর ঘটখালী গ্রামে, কবি ১৪-১০-১৯৯৯ সালে মুসলিম পরিবারের জন্মগ্রহণ করেন। তিনি রহমাত পুর দাখিল মাদ্রাসায় থেকে ২০১৬ সালে এস এসসি পাশ করেন এবং আমতলী সরকারি কলেজ থেকে ২০১৮ সালে এইচ এসসি পাশ করেন।

০১/
আমি একজন শ্রমিক
মোঃমেহেদী হাসান

আমি একজন শ্রমিক পেটের ক্ষুধা নিবারণ,
কড়ার জন্য দিন রাত পরিশ্রম করি।
পরিশ্রমের করে যে অর্থ কামাই করি তাই দিয়ে,
আমার সংসার চালাই আমি চুরি ডাকাতি করিনা।
সপ্তাহ বা মাসের শেষ পাই আমি বেতন কিন্তু,
মালিক আমার বেতন টাকা ঠিক মতোদেয় না।
আমি যদি চাইতে যাই আমার ঘাড় ধাক্কা,
দিয়ে আমাকে বাসা থেকে বেড় করে দেয়।
আমি নিরুপায় হয়ে যাই কী করবো জানিনা,
গাদার মতো আমি খেটেই মরছি নেজ্য টাকা পাইনা।
এক টাকা দুই টাকা করতে করতে প্রচুর টাকা পাবো, আমি মালিকের কাছে এতো হাতে পায় ধড়ি টাকা জন্য কান্নাকাটি করি তবুও দেয়না ।
অন্যর নিকট নালিশ দিলে তাড়াও তার বিচার করেনা আমি আজ অসহায়,
নিজের পরিশ্রমের টাকা আদায় কড়ার জন্য পুলিশের নিকট যাই।
কিন্তু পুলিশ বেটা আমার কথা শুনে না উল্ট,
আমাকে পাগল বলে আটক করে টর্চার।
মালিকের উপারে ক্ষিপ্ত হয়ে আমি তার পেটে ছুরি চালাই,
এই আপরাধের কারনে আজ আমার জেল হয়।
কিন্তু আমি আমার পরিশ্রমের টাকার জন্য কতো মানুষের নিকট এবং,
পুলিশের নিকট বিচার চেয়েছি কিন্তু কেউ আমার কথা শুনে নাই।

০২/
পুতে মোড় শহারে গেছে চলিয়া
মোঃমেহেদী হাসান

মোরা দুই বুড়ো বুড়ি আছি গ্রামে পড়িয়া পুতে মোর
পড়াশুনা করে বৌ, বাচ্চা নিয়ে আছে শহারে পড়িয়া।
মোগো গোল পাতা হোগোল পাতার বানানো পুরাণ, ঘর সেই ঘরে ঝর বৃষ্টি আইলে যায় সব তলাইয়া।
মোড়া দুই বুড়ো বুড়ি পলিথিন মুড়া দিয়া থাহি চকিতে হুইয়া
বৃষ্টি পানি গায় গোতরে পরিয়া সব গা যায় ভিজীয়া
পুতে মোর
চাকুরী করে শহারে তাই থাকে ফ্যালাট, বাসায় এসি রুমে বৌ, বাচ্চা লইয়া হুইয়া।
কতো কষ্ট করিয়া পুতেরে মুই ইস্কুল কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়,
পড়াশুনা করালাম এই কথা পুতে গেছে ভূলিয়া।
পড়াশুনা করার সময় পুতে মোগো দুই বুড়ো বুড়িকে কইছিলে মা-বাবা চিন্তা করোনা,
মুই পড়াশুনা করিয়া বিরাট চাকুরী লইয়া বাড়িতে বিল্ডিং উঠাইয়া থাকুম তোমাদের লইয়া।
এখন পুতে আমার বড়োলোকের মেয়ে বিবাহ করিয়া সব
কিছু গেছে ভূলিয়া মোনে ধরলে মাঝে চিঠি পত্র দেয়।
মোড়া দুই বুড়ো বুড়ি চিঠি পত্র দিয়ে টাকা পয়সা চাই কিন্তু মোরা,
দুই বুড়া বুড়ি পুতের কাছ থেকে মোডেও টাকা পয়সা পাইনা।
এদিকে পায়রা নদী দিন দিন যাইতেছে আছে পশ্চিম দিক থেকে ভাইগ্যা মোগো,
আগের কালের বুড়ো বুড়ি কবর যাচ্ছে পায়রা নদীর তুফান আইয়া ভাইঙ্গা।
কী আর করমু পুতেরে এতো চিঠি পত্র দিয়েও বাড়িতে আনতে পারিনা মোগো,
দুই বুড়ো বুড়ির নিকট যায়নি শহারে বাসার ঠিকানায় কইয়া।
শহারের বাসার ঠিকানায় যদি পুতে মোড় যাইতে কইয়া তাহলে মোরা দুই
বুড়ো বুড়ি কাতার গাট্টি লইয়া যাইতাম নৌকায় চরিয়া শহরে চলিয়া।

০৩/
রাজনীতি
মোঃমেহেদী হাসান

আজকাল স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়,
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চলছে রাজনীতি।
ছাত্র ছাত্রীগণ লেখা পড়া বাদদিয়ে,
করছে মনোযোগ দিয়ে রাজনীতি।
কেউ বর্তমান সরকারের লোক হবে কেউ,
বিরুধী দলের লোক হবে তাই নিয়ে করে দ্বীধাদন্দ।
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র ছাত্রীগণ কলম ছেড়ে দিয়ে, ধরছে অবৈধ অাগ্নেয়াস্ত্র চাপাতি আরও অন্য অন্য অস্ত্র।
ছাত্র ছাত্রী একে অপরের সাথে করছে মাড়া মাড়ি, কাটাকাটি এই নিয়ে চলছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গণ্ডগোল।
পুলিশ এসে পারছেনা ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে মাড়া মাড়ি কাটাকাটি থামাতে,
বাধ্য হয়ে পুলিশ বেটা অস্ত্রসহ ছাত্র ছাত্রী গণভাবে ধরে নিয়ে যায় জেলে।
এই সব রাজনীতির কারনে ঝরে পরে যায় অনেক ছাত্র ছাত্রীর লেখা পড়া, বাবা- মায়ের সপ্ন হয়ে যায় নিঃস্ব।

০৪/
লালোসার শিকার
মোঃমেহেদী হাসান

আমি একজন শিক্ষিত নারী একদিন,
আমি এই সমাজে গর্ভিত লোক ছিলাম।
হঠাৎ একটি দূর ঘটনা আমার মাথা অসচেতন,
হয়ে জায় আমি এখন রাস্তার পাগল।
আমি নিজের ভালো মন্ধ কিছুই আমি বুজিনা,
এবং আমার পরনে থাকেনা কাপড় চোপড়।
তাই মানুষ রূপি কিছু জানোয়ার আমার নগ্ন,
দেহর দিকে ঢেব ঢেব করে চেয়ে থাকে।
তাই দেখে কিছু মানুষ আমাকে কাপড় চোপড়,
পরিয়েদেয় আমি পাগল তবুও আমি নিরাপদ নই।
রাতের আমি যেখানে সেখানে ঘুমিয়ে থাকি কারন, আমার আমি একজন পাগল আমার কোন ঘরবাড়ি নেই।
তাই আমার দেহ ভোগ কড়ার জন্য কিছু মানুষ রূপি, জানোয়ার শুজক বিছরায় এবং কেহ আমার দেহ ভোগকরে।
মানুষ রূপি জানোয়ারদের যৌন চাহিদা মেটানোর, খোরাক হয়েগেছি আমি পাগল হয়েও রেহাই পেলাম না।
আজ আমার পেটে মানুষ রূপি জানোয়ার এর বাচ্চা সৃষ্টি হয়েছে,
আমি মা হতে চলেছি কিন্তু কেউ বাবা হতে চাচ্ছে না।
হঠাৎ একদিন আমার বাচ্চা ডেলি ভারি হলো রাস্তার পাশে,
আমি অসুস্থ হয়ে পরে রইয়েছি কেউ আমার খবর নিচ্ছে না।
আমার সন্তানের নাভি না কটার জন্তনা ছটফট করতে করতে এক,
পরজায় মার গেলো কেউ তার লাশটি দাপন করতে আসেনি।
আমি আজ খোদার কাছে কান্না করে বললাম খোদা মোড়ে এই নিরমাম,
পরিস্তিতি কেন করলেন তুমি আমার জীবনটাকে কেড়ে নিয়েজাও।

সংবাদটি শেয়ার করুন

3 thoughts on "কবি মেহেদী হাসান এর শ্রেষ্ঠ চার কবিতা। বাংলার কথা অনলাইন।"

  1. কবি মোঃ রাজিব হোসেন
    বাসা:মানিকগঞ্জ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সাগরিকা প্রকাশনী ও বই বিপণি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত