1. admin@banglarkota.com : admin :
  2. jakariaborkoth@gmail.com : মোঃ তারেক হোসেন জাকারিয়া বরকত : মোঃ তারেক হোসেন জাকারিয়া বরকত
  3. adnanfahim069@gmail.com : মোঃ আবরার ফাহিম : মোঃ আবরার ফাহিম
  4. mdmamunhossen1222@gmail.com : মোঃ মামুন হোসেন : মোঃ মামুন হোসেন
  5. miraz55577@gmail.com : মোঃ মিরাজ সাহিত্য প্রতিনিধি : মোঃ মিরাজ সাহিত্য প্রতিনিধি
  6. nahidadnan124@gmail.com : নাহিদ হোসেন নিরব : নাহিদ হোসেন নিরব
  7. ridoyahmed.news@gmail.com : মোঃ হৃদয় আহমেদ : মোঃ হৃদয় আহমেদ
  8. irsajib098@gmail.com : মোঃ সজীব হোসেন : মোঃ সজীব হোসেন
বিবর্ণ বাসরে বৈশাখী বসন্ত।বাংলার কথা অনলাইন। - Banglar Kota
সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১০:৩৪ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
আপনি কি গল্প, কবিতা, ছড়া, উপন্যাস লেখেন? কিন্তু প্রকাশের কোন মাধ্যম পাচ্ছেন না? কিছু সহজ শর্ত সাপেক্ষে সাগরিকা প্রকাশনী প্রকাশ করবে আপনার স্বপ্নের গ্রন্থটি। যোগাযোগঃ ০১৭৩১৫৬৪১৬৪

বিবর্ণ বাসরে বৈশাখী বসন্ত।বাংলার কথা অনলাইন।

Reporter Name
  • প্রকাশিত : সোমবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২০
  • ৭১ বার পড়া হয়েছে

♦বিসমিল্লাহিররাহমানিররাহিম♦
♦বাংলা নববর্ষ-১৪২৬। রোববার ♦
♦১৪/০৪/২০১৯***************♦
♦গল্প***বিবর্ণ বাসরে বৈশাখী বসন্ত♦
♦♦ এস আকরাম হোসেন♦♦♦
পরাশ্রিত শুভ কখনও ভাবতে পারেনি তার স্বয়ং আশ্রয়দাতা তাকে তাঁর জামাই করার সিদ্ধান্ত নেবেন। রাজনন্দিনী, পরমআদরের কন্যা শিখাকে তুলে দেবেন চালচুলোহীন শুভ’র হাতে! দেশের খ্যাতনামা শিল্পপতি মাহবুব তালুকদার। তাঁরই বাড়িতে আশ্রিত গ্রামের দুরসম্পর্কের আত্মীয়ের ছেলে শুভ।
অনেক বছর আগে, কোন এক ঈদে, গ্রামে সপরিবারে ঈদ করতে গিয়েছিলেন। এতিম শুভকে তালুকদার সাহেবের আত্মীয়-স্বজনেরা তাঁর হাতে সপে দিয়েছিলেন। তাঁর আশ্রয়ে খেয়ে-পড়ে ছেলেটি মানুষ হবে এই আশাতে।
মানুষ হিসাবে তালুকদার সাহেব বড়ই অমায়িক,পরোপকারি ও সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি।
দেশের সুনামধন্য ব্যবসায়ী। বড়ই মহানুভব মানুষ তিনি। তাঁর গ্রামের স্বজনেরা জানতেন শুভ তাঁর আশ্রয় একদিন মানুষের মত মানুষ হবে। হয়েছেও তাই। নম্র,ভদ্র, শান্ত,শিষ্ট উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত; সুদর্শন-মেধাদীপ্ত শাহরিয়ার বুলবুল শুভ।
তালুকদার সাহেবের অত্যন্ত স্নেহধন্য এবং তাঁর বাধ্যগত, সুবোধ সন্তানের মত।
শুভ’র সাথে শিখার একই পরিবেশে বেড়ে ওঠা। পারিবারিক মেলামেশা বলতে শিখাকে শুভ গৃহশিক্ষকের মত পড়িয়েছে। কেউ কাউকে ভালবাসা কিম্বা প্রনয়ের দৃষ্টিতে দেখেনি। শিখা বাবার একমাত্র আদরের নন্দিনী। সুখৈশ্বর্যে লালিত হলেও বখে যায়নি। তবে অত্যন্ত আধুনিকা ও উচ্চভিলাষী।
শুভ’র সাথে শিখার বিয়ে হবে এটা সে কখনও ভাবতে পারেনি। বাবার এ রকম আকস্মিক সিদ্ধান্তে সে কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে যায়। প্রতিবাদের ভাষা সে হারিয়ে ফেলে। শ্রদ্ধাভাজন প্রিয় বাবাকে সে না করতেও পারছেনা, আবার সে সিদ্ধান্তকে মেনেও নিতে পারছেনা।
অবশেষে সে শুভ’র মুখোমুখী হওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। একসময় সে শুভ’র ঘরে চুপিসারে প্রবেশ করে। শুভ চমকিত সুরে বলে,”শিখা তুমি——–!”
(সংক্ষেপিত-পরবর্তী পর্বের জন্য অপেক্ষা করুন)

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সাগরিকা প্রকাশনী | সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

প্রযুক্তি সহায়তায় ইন্টেল ওয়েব